আইপিএল ২০১৮: 2018র আইপিএল নিলামে সবচেয়ে দামি প্লেয়ার হওয়ার পর প্রতিক্রিয়া জানালেন জয়দেব উনাকট
Jaydev Unadkat of Rising Pune Supergiant celebrates getting Shreyas Iyer of the Delhi Daredevils wicket during match 52 of the Vivo 2017 Indian Premier League between the Delhi Daredevils and the Rising Pune Supergiant held at the Feroz Shah Kotla Stadium in Delhi, India on the 12th May 2017
Photo by Shaun Roy – Sportzpics – IPL

কথায় আছে পরিশ্রমের মূল্য পাওয়া যায়, এবং জয়দেব উনাকথা অবশ্যই এই কথাটির সঙ্গে একমত হবেন। অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে সম্ভবনার ইঙ্গিত দেওয়ার পর, এই সম্ভবনায়ময় পেসার সকলের নজরে আসেন, কিন্তু তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে তার অভিষেক টেস্টে তিনি সেভাবে প্রভাব ফেলতে পারেন নি, প্রায় ৪ ইকোনমি রেটে ১০০ রানের বেশি দিয়ে তিনি কোনো উইকেট নিতে ব্যর্থ হন। এরপর তিন বছর পর ২০১৩য় আইপিএল এবং ঘরোয়া ক্রিকেটে সকলকে প্রভাবিত করার পর জিম্বাবোয়ের বিরুদ্ধে তার ওয়ান ডে অভিষেক হয়। কিন্তু শীঘ্রই তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অদৃশ্য হয়ে যান ধারাবাহিকহীন পারফর্মেন্স এবং চোট আঘাতের কারণে। ২০১৪তে স্ট্রেস ফ্যাকচারের কারণে তাকে বেশ কিছুদিন মাঠের বাইরে থাকতে হয়, ফলস্বরূপ ২০১৪-১৫ মরশুমে তিনি কোনোমতে একটিই মাত্র রঞ্জি ট্রফি ম্যাচ, সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফি টি২০টে চারটি, এবং ২০১৫ আইপিএলে দিল্লি ডেয়ার ডেভিলসের হয়ে একটি মাত্র ম্যাচ খেলতে পারেন। শেষ পর্যন্ত চোট সারিয়ে তিনি মাঠে ফেরেন এবং তারপর থেকে তিনি আর পেছনে ফিরে তাকান নি। ২০১৫-১৬ রঞ্জি ট্রফি মরশুমে তিনি দুর্দান্ত কামব্যাক করেন, এবং প্রায় ৪০টিরও বেশি উইকেট নেন, যার মধ্যে অনেকবারই তিনি চার বা পাঁচ উইকেট করে নেন, এবং তার এই পারফর্মেন্স ওই বছর সৌরাষ্ট্রকে সাহায্য করে ফাইনাল অব্ধি পৌঁছতে। এবং ওই বছর আইপিএলেও তিনি নিজের ফর্ম ধরে রাখেন, এবং গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে রাইজিং পুনে সুপার জায়ান্টকে ফাইনাল পর্যন্ত নিয়ে যান।

এই সৌরাষ্ট্রের তারকা মাত্র বারোটি ম্যাচে ১৩.৪১ ইকোনমি রেটে ২৪টি উইকেট নেন, যার মধ্যে একবার তিনি পাঁচ উইকেটও নেন, সেই সঙ্গে ওই বছর সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় তিনি একমাত্র ভুবনেশ্বর কুমারের পেছনেই থাকেন। তার এই প্রভাবশালী পারফর্মেন্সের কারণেই তাকে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টি২০ সিরিজে ফের ভারতীয় দলে ডেকে নেওয়া হয়, এবং তিনি এখন আরও একটু পুরস্কার পেলেন তার ধারাবাহিক পারফর্মেন্সের জন্য। এই ২৬ বছর বয়েসি পেসার সম্প্রতি শেষ হওয়া আইপিএল নিলামে আসন্ন মরশুমে সবচেয়ে দামী ভারতীয় প্লেয়ার হয়েছেন রাজস্থান রয়্যাল তাকে ১১.৫ কোটি টাকায় তাকে কিনে নেওয়ার পর। এবং এটা আশ্চর্য নয় যে, এই বোলার অন্যান্য ফ্রেঞ্চাইজি গুলির কাছ থেকেও ভয়াবহ বিডিং পেয়েছেন। এ ব্যাপার উনাকট পিটিআইকে জানিয়েছেন, “ ফিজিওর আমাকে আমার বিডিং চলছে বলার পর, আমি প্রায় ১৫ মিনিট ধরে লাইভ স্ট্রিমিং করে নজর রাখছিলা, এবং সবকিছুই আমার কাছে অবাস্তব মনে হচ্ছিল। পুরো দলটাই তাদের ট্রেনিং বন্ধ করে দিয়েছিল আমার বিডিং দেখার জন্য”।

এই সৌরাষ্ট্রের তারকা আরও বলেন যে তিনি এটা আশা করেন নি যে ফ্রেঞ্চাইজিগুলো একজন ফাস্ট বোলারের জন্য ১০ কোটি টাকার উপরে বিডিং করবে যা সাধারণত ব্যাটসম্যানদের জন্যই দেখা যায়। তিনি বলেন, “ অনেস্টলি, আমার মাথায় টাকার কোনো অঙ্কই ছিল না। শেষ দু বছর আমার জন্য বেশ ভালই ছিল, এবং গত বছর আইপিএলের (২৪ উইকেট) পর, আমি একটা ভালো বিডিংয়ের আশা করেছিলাম। কিন্তু হ্যাঁ, যে ধরনের বিডিং হয়েছে তাতে আমি সত্যি খুব রোমাঞ্চিত। এটা আমার জন্য বেশ অবাক করার মতই একটা ব্যাপার যে ফ্রেঞ্চাইজিগুলো একজন ফাস্ট বোলারের জন্য এত টাকা খরচা করতে প্রস্তুত ছিল”। এবং একই সময়, উনাকট এই মুহুর্তটাকে ভুলতে চান না, এবং তার কাঁধে এর ফলে যে দায়িত্ব বর্তালো তা নিয়েও তিনি যথেষ্ট সতর্ক। তিনি বলেন, “ আমি অভিভূত, কিন্তু এটাকে আমি খুশি মনেই নিচ্ছি। আমি আশা করছি যে আমি আমার ফ্রেঞ্চাইজিকে আমার সেরাটাই দিতে পারব, এবং তা করার প্রয়াস করে যাব”।

২০১০ এ তার প্রথম এবং একমাত্র টেস্ট খেলার পর থেকে তার পরিবর্তন নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, “ এখনও পর্যন্ত ভারতের হয়ে মাত্র একবারই খেলতে পারার পর, আমি আমার খেলা নিয়ে প্রচুর পরিশ্রম করেছি। আমার এই পরিবর্তনের একমাত্র কারিগর আমাদের ভারতীয় দলের বোলিং কোচ ভরত অরুণ। ভরত স্যার তবে থেকে আমার কোচ যখন আমি একজন অনুর্ধ্ব -১৯ ভারতীয় প্লেয়ার ছিলাম। আমি এনসিএ তে তার সঙ্গে বেশ কিছু মরশুম কাটিয়েছি, যা ভীষণ উপযোগী প্রমানিত হয়েছে। বর্তমানে আমি টি২০ ভারতীয় দলে ফিরে এসেছি, ফলে আমি নিয়মিতভাবে ভরত স্যারের সঙ্গে টাচে রয়েছি এবং তার কাছ থেকে পাওয়া টিপস গুলো কার্যকর করার প্রচেষ্টা করে চলেছি। আমার মনে হয় ভ্যারিয়েশন ব্যবহার করার ক্ষেত্রে সব থেকে বড় পরিবর্তন হল আমার মানসিকতার বদল। নতুন কিছু চেষ্টা করার জন্য আমার মধ্যে এখন যে আত্মবিশ্বাস রয়েছে, কিছুদিন আগেও সেটা আমার মধ্যে ছিল না”।

  • SHARE
    সাংবাদিক, আদ্যন্ত ক্রীড়াপ্রেমী। দ্বিতীয় ডিভিসনে দীর্ঘদিন ক্রিকেট খেলার দরুণ ক্রিকেটের অন্ধ ভক্ত। ব্রায়ান লারা সচিনের অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের বাইরে ব্রাজিলের সমর্থক এবং নেইমার ও মেসির অন্ধ ভক্ত।

    আরও পড়ুন

    আইপিএল ২০১৮: ম্যাচ ১৭, রাজস্থান রয়্যালস বনা চেন্নাই সুপার কিংস, এই ম্যাচের পরিসংখ্যানগত তথ্যাবলী

    আইপিএল ২০১৮: ম্যাচ ১৭, রাজস্থান রয়্যালস বনা চেন্নাই সুপার কিংস, এই ম্যাচের পরিসংখ্যানগত তথ্যাবলী
    আইপিএলে চেন্নাইয়ের নতুন ঘরের মাঠ হল পুণের এমসিএ স্টেডিয়াম। এই ম্যাচে তাদের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেই রাজস্থান...

    আইপিএল ২০১৮: ম্যাচ ১৭, আরআর বনাম সিএসকে, ম্যাচ শেষে কার কি বক্তব্য জেনে নেওয়া যাক

    আইপিএল ২০১৮: ম্যাচ ১৭, আরআর বনাম সিএসকে, ম্যাচ শেষে কার কি বক্তব্য জেনে নেওয়া যাক
    সিএসকের নতুন ঘরের মাঠে পুণের এমসিএ স্টেডিয়ামের শুক্রবার রাজস্থান রয়্যালসকে হারিয়ে বিশাল ব্যবধানের জয় তুলে নিল মহেন্দ্র...

    গেইলকে দলে নিয়ে আমি আইপিএলকে বাঁচালাম : সহবাগ

    গেইলকে দলে নিয়ে আমি আইপিএলকে বাঁচালাম : সহবাগ
    আইপিএলকে রক্ষা করেছেন তিনি ক্রিস গেইলকে দলে নিয়ে। এমনটাই দাবী কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের মেন্টর কাম ক্রিকেট অপারেশন...

    চ্যাম্পিয়নের পর ফের নতুন গানে মাতালেন ডিজে ব্র্যাভো

    ক্রিকেট বিশ্বকে শুধু ব্যাটে বলে বা ফিল্ডিংয়ে নয়, গান গেয়েও মুগ্ধ করে দিয়েছিলেন এই ওয়স্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার।...

    সমস্যায় তাসকিন, সৌম্য সরকার, বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের বড় ধাক্কা

    সমস্যায় তাসকিন, সৌম্য সরকার, বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের বড় ধাক্কা
    বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ছয় ক্রিকেটারের উপর নেমে এল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কুঠারাঘাত। জাতীয় দলের হয়ে এই...