আইপিএল ২০১৮: ম্যাচ ৫, চেন্নাই কেকেআর বনাম সিএসকে, ম্যাচ শেষে কে কি বললেন জেনে নিন

১০৬৫ দিন পর ঘরের মাঠে তাদের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমেছিল চেন্নাই সুপার কিংস। ৩ বছর ধরে চিপক স্টেডিয়ামের দর্শকদের দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটল সঠিকভাবেই। দু দলেরই ধুন্ধুমার ব্যাটিংয়ে যদিও শেষ পর্যন্ত শেষ হাসি হাসল ধোনির নেতৃত্বাধীন চেন্নাই সুপার কিংস। টস জিতে কেকেআরকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠান ধোনি। নারিনের গোটা দুয়েক ছক্কায় শুরুটা ভালো করলেও ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে ভয়ংকর হয়ে উঠতে চলা নারিনকে ফিরিয়ে দিয়ে কেকেআরকে প্রথম ধাক্কা দেন হরভজন সিং। আরেক ওপেনার ক্রিস লিন চেষ্টা করলেও বড় রান করার আগেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনিও। যে সময় মনে হচ্ছিল উথাপ্পা দলকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন ঠিক সেই সময়ই একটি দুরন্ত ডাইরেক্ট থ্রোতে তাকে ফিরিয়ে দেন সুরেশ রায়না। তরুণ রিঙ্কু সিংও ফিরে যান দ্রুত। একসময়ে কেকেআরের রান দাঁড়ায় ১০ ওভারে ৮৯/৫। সেই সময় সকলেই মনে করেছিলেন খুব এওটা দূর যেতে পারবে না কেকেআরের ইনিংস। কিন্তু সকলকে ভুল প্রমানিত করে এখান থেকেই ক্রিজে জুটি বাঁধেন অধিনায়ক কার্তিক এবং অলরাউন্ডার অ্যান্দ্রে রাসেল। বিশেষ করে রাসেল সিএসকের বোলারদের উপর রীতিমতো তান্ডব শুরু করেন।

সিএসকের প্রায় কোনও বোলারকেই তিনি রেহাই দেন নি। তবে সবচেয়ে বেশি নির্দয় তিনি ছিলেন জাতীয় দলে তার সতীর্থ ডোয়েন ব্র্যাভোর ওপর। নিজের ৩ ওভারে ব্র্যাভো ৫০ রান দেন। ব্র্যাভোর বলে একটি দুরন্ত ছক্কা মেরে বল স্টেডিয়ামের বাইরেও পাঠিয়ে দেন রাসেল। সেই ছক্কাটির আয়তন ছিল ১০৫ মিটার। শেষ পর্যন্ত বিধ্বংসী রাসেল ১১টি ছক্কা এবঙ্গে কটি চারের সঙ্গে ৩৬ বলে ৮৮ রানে অপরাজিত থাকেন। মূলত তার ব্যাটিংয়ের উপরেই ভর করে কেকেআর তাদের নির্ধারিত ২০ ওভারে চেন্নাইয়ের সামনে ২০২ রানের লক্ষ্যমাত্রা রাখে। অন্যদিকে রান তাড়া করতে নেমে পিছিয়ে থাকে নি চেন্নাইও। তাদের দুই ওপেনিং জুটি শেন ওয়াটসন এবং আম্বাতি রায়ডু মিলে ওপেনিং জুটিতে যোগ করেন ৭৫ রান। এরপরই ম্যাচে ফিরে আসে কেকেআর। মাঝের ওভার গুলিতে চেন্নাইয়ের বেশ কয়েকটি উইকেট তুলে নেন তারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত চেন্নাইয়ের এ বছরের নতুন তারকা ইংল্যান্ডের অলরাউন্ডার স্যাম বিলিংসের কাছে হার মেনে যায়।

রাসেলের মত না হলেও যথেষ্ট বিধ্বংসী মেজাজে ব্যাট করেন বিলিংস। ২৩ বল ৫৬ রানের ইনিংস খেলে তিনি দলকে প্রায় জয়ের দোড় গোড়ায় পৌঁছে দেন। ১৮ ওভারে বিলিংস আউট হয়ে যাওয়ার পর চেন্নাইয়ের সামনে লক্ষ্য মাত্রা দাঁড়ায় ২ ওভারে ২৭ রান। যেখান থেকে বাকি কাজ টুকু সেরে ফেলেন রবীন্দ্র জাদেজা এবং ডোয়েন ব্র্যাভো। শেষ দু বলে ৪ রান বাকি থাকায় উইনিং শট মেরে দলের মুখে হাসি ফোটান রবীন্দ্র জাদেজা। ম্যাচ শেষে স্পষ্টতই হতাশ দেখায় কেকেআরের অধিনায়ক দীনেশ কার্তিককে। একবার দেখে নেওয়া যাক ম্যাচ শেষে কে কি বললেন।

বিজয়ী অধিনায়ক ধোনি:

দু বছর পর ফিরে এসে ঘরের মাঠে ম্যাচ জেতাটা দারুণ ফিলিংস। আমি মতে এটা একটা দুর্দান্ত ম্যাচ ছিল। ওরা ( ঘরের মাঠে খেলতে নামার প্রসঙ্গে) এই প্রতিটা মুহুর্তেরই দাবীদার; প্রথম ইনিংস এবং দ্বিতীয় ইনিংস। প্রতেকেরই আবেগ রয়েছে এবং তা নিয়ন্ত্রণ করতে সকলকেই বলেছিলাম আমরা। আমাদের দরকার ছিল যারা ব্যাট করছে সেই ব্যাটসম্যানদের ওপর বিশ্বাস রাখার এবং যারা বল করেছে সেই বোলারদের ওপরেও। দিনের শেষে ওই একজন ব্যাটসম্যানই ওই বিশেষ ডেলিভারিতে ব্যাট করবে এবং একজনই বোলারই ওই বিশেষ ওভারটিতে বল করবে। প্রচুর পজিটিভ এনার্জি সাহায্য করেছে। এটা করেই। একটা সময়ে আপনি হতাশা অনুভব করতে পারেন, সেই জন্যই ড্রেসিং রুম রয়েছে নিজেকে প্রকাশ করার জন্য, ডাগআউট তা করার জন্য নয়। আমরাও একই অনুভব করি। যদি আমরা খুবই আবেগপ্রবণ হই, তাহলে কমেন্টেটররা সেটা নিয়ে প্রচুর কথা বলবে। হ্যাঁ প্রতিটা ম্যাচেই একজন করে প্লেয়ার আহত হচ্ছে। এবং সেই হিসেবে দেখতে গেলে এই টুর্নামেন্টের শেষে আমাদের হাতে ১৪ জন প্লেয়ারও থাকবে না। তা ছাড়াও স্যাম যেভাবে ব্যাট করছে তা দেখা খুবই আরামদায়ক। কিন্তু এখনও মনে হচ্ছে কেকেআর আমাদের চেয়ে অনেক বেশি রান করেছে, ওই ছয় গুলোর জন্য। আইপিএলের উচিৎ যে ছগুলো একেবারে মাঠের বাইরে চলে যাচ্ছে তার জন্য আরও এক্সট্রা দু রান যোগ করা। দু দলের বোলারদের জনই খুব খারাপ দিন ছিল। কিন্তু সব মিলিয়ে এটা এখানকার দর্শকদের জন্য খুব ভালো একটা দিন ছিল।

ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ স্যাম বিলিংস:

“এমন একটা কিংবদন্তীদের দলের হয়ে খেলা খুবই চাপের। আইপিএলের এটাই সেরা ব্যাপার। হাসির মত মানুষের কাছে আপনার অনেক কিছু শেখার সুযোগ রয়েছে। সেই সঙ্গে ব্যাটিং কোচের কাছ থেকেও। অপশনগুলো আপনার হাতেই থাকে। প্ল্যান এ, প্ল্যান বি, প্ল্যান সি, কিন্তু সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন নিজের প্রতি বিশ্বাস রেখে তা একজিকউট করার। সৌভাগ্যবশত এটা আমার দিন ছিল, যা ভীষণই আনন্দ দায়ক। প্রথম ম্যাচেই আমরা ব্র্যাভোর ব্যাটিং দেখেছি। টি২০ ক্রিকেটে এটাকে গভীরভাবে নেওয়া দরকার। প্রচুর শক্তি রয়েছে আমাদের ব্যাটিং লাইনআপে, এবং একটা দল হিসেবে আমরা জানি যে আমরা যে কোনও লক্ষ্যই পার করতে পারি”।

কেকেআরের অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক:

“সিএসকে প্রায় দু বছর পর ফিরে এসেছে এবং আমরা সকলেই তাই আশা করেছিলাম (সাপোর্ট)। ওদের হ্যাটস অফ। তারা খুব ভালো খেলেছে। অ্যান্দ্রে কে হ্যাটস অফ। ও খুব ভালো জায়গায় নিয়ে গিয়েছিল। এগুলো টি২০ ক্রিকেটে হয়েই থাকে। আপনাকে মাথা তুলে দাঁড়াতে হবে এবং সামনের দিকে এগোতে হবে। টি২০তে আপনি ম্যাচ হারতেই পারেন। এটাকে পজিটিভিভাবে নেওয়াটাই জরুরী। পরের ম্যাচগুলোতে আমাদের এই ভুলগুলোর পুণরাবৃত্তি করা চলবে না। পরের ম্যাচে আমরা ঘরের মাঠে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের বিরুদ্ধে খেলব; দুটোই ভালো দল, এবং নিশ্চিতভাবেই এটা খুব ভালো একটা ম্যাচ হতে চলেছে”।

SHARE
সাংবাদিক, আদ্যন্ত ক্রীড়াপ্রেমী। ব্রায়ান লারা সচিনের ভক্ত। ক্রিকেটের বাইরে ব্রাজিলের সমর্থক এবং নেইমার ও মেসির অন্ধ ভক্ত।

আরও পড়ুন

ঋষভ পন্থকে এশিয়া কাপে নির্বাচিত না করার জন্য সৌরভ গাঙ্গুলী নির্বাচকদের এইভাবে নিলেন ক্লাস

ঋষভ পন্থকে এশিয়া কাপে নির্বাচিত না করার জন্য সৌরভ গাঙ্গুলী নির্বাচকদের এইভাবে নিলেন ক্লাস
টেস্টের অভিষেক সিরিজে দুর্দান্ত প্রদর্শন করে সকলকেই প্রভাবিত করা তরুণ ক্রিকেটার ঋষভ পন্থকে এই মুহুর্তে এশিয়া কাপে...

খলিল আহমেদ ভারতের হয়ে করলেন অভিষেক, লোকেরা ঠিক এইভাবে জাহির করলেন খুশি

খলিল আহমেদ ভারতের হয়ে করলেন অভিষেক, লোকেরা ঠিক এইভাবে জাহির করলেন খুশি
এশিয়া কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে টিম ইন্ডিয়া টস হেরে গিয়েছে আর হংকং দল তাদের প্রথমে ব্যাট করার...

সমর্থকদের জন্য খুশির খবর, যুবরাজ সিংয়ের হল দলে প্রত্যাবর্তন

সমর্থকদের জন্য খুশির খবর, যুবরাজ সিংয়ের হল দলে প্রত্যাবর্তন
ভারতে ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত বিজয় হাজারে টুর্নামেন্ট খেলা হবে। প্রসঙ্গত এই টুর্নামেন্ট ওয়ানডে ফর্ম্যাটে...

এশিয়া কাপ ২০১৮: রোহিত শর্মা আর উপুল থরঙ্গার মধ্যে ৭০০০ রান পূর্ণ করা নিয়ে বাঁধল লড়াই, জানুন প্রথমে কার নামে নথিভূক্ত হতে পারে এই...

ভারতীয় দলের অধিনায়ক রোহিত শর্মা আর শ্রীলঙ্কা দলের তারকা অভিজ্ঞ ওপেনার উপুল থরঙ্গা দুজনেই ওয়ানডে ক্রিকেটে ৭০০০...

এশিয়া কাপ: রোহিত শর্মা খলিল আহমেদের প্লেয়িং ইলেভেনে খেলা নিয়ে বললেন এই বড় কথা

এশিয়া কাপের জন্য ২০ বছর বয়েসী তরুণ বাঁ হাতি জোরে বোলার খলিল আহমেদ ভারতীয় দলে জায়গা পেয়েছেন।...