আইপিএল ২০১৮: ম্যাচ ২, 19 ওভার পর্যন্ত ম্যাচ নিয়ে যাওয়ার কৃতিত্ব বোলারদের: গম্ভীর

আইপিএল ২০১৮: ম্যাচ ২, 19 ওভার পর্যন্ত ম্যাচ নিয়ে যাওয়ার কৃতিত্ব বোলারদের: গম্ভীর 1

ভারতে আইপিএল চালু হওয়ার পর থেকে এখনও পর্যন্ত এই খেতাব জিততে পারে নি দিল্লি ডেয়ারডেভিলস এবং কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের কেউই। ফলে এই মরশুমে খেতাব জয়ের জন্য মরিয়ে হয়ে ঝাঁপাতে চাইছে দু’দলই। আইপিএলের এই মরশুমে প্রথম ম্যাচে মুখোমুখী হয় এই দুইদল। যদিও একেপেশে লড়াইয়ে এই ম্যাচে দিল্লিকে ৬ উইকেটে হারিয়ে দেয় পাঞ্জাব। ২০১৭ মরশুমও যথেষ্টই হতাশাজনক ছিল দিল্লির কাছে, এ মরশুমের শুরুটাও বেশ হতাশজনকভাবেই হল তাদের। প্রথমে ব্যাট করে স্কোর বোর্ডে সম্মানজন স্কোর খাড়া করলেও সেই রান তাড়া করতে পাঞ্জাবকে খুব একটা ঘাম ঝরাতে হয় নি। দিল্লির হয়ে ওপেন করতে নেমে অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর এবং কলিন মুনরো পাঞ্জাবের স্পিনের আক্রমণের মুখে পড়েন। প্রথম ওভার থেকেই স্পিনারদের আক্রমণে আনেন অশ্বিন। পাঞ্জাবকে প্রথম উইকেট এনে দেন এই ম্যাচে অভিষেককারী আফগানিস্থানের স্পিনার মুজিব জর্ডণ। জর্ডনকে অহেতুক সুইপ মারতে গিয়ে আউট হন মুনরো। আইপিএলে প্রায় সাত বছর পর দিল্লির হয়ে প্রত্যাবর্তনকারী গম্ভীর যথেষ্ট দেখে শুনেই খেলতে শুরু করেন।

আইপিএল ২০১৮: ম্যাচ ২, 19 ওভার পর্যন্ত ম্যাচ নিয়ে যাওয়ার কৃতিত্ব বোলারদের: গম্ভীর 2

প্রথম ম্যাচেই দিল্লির হয়ে প্রভাব ফেলার লক্ষ্যে নামেন গম্ভীর। উইকেটে একদিক গম্ভীর ধরে থাকলেও অন্যদিক থেকে কোনও সহযোগিতাই পাননি তিনি। মিডল অর্ডারে নেমে শ্রেয়স আইয়ার এবং বিজয় শঙ্কর গৌতমকে সঙ্গ দেওয়ার চেষ্টা করলেও তা খুব একটা প্রভাব ফেলতে পারে নি পাঞ্জাব বোলারদের মধ্যে। এই টুর্নামেন্টে নিজের ৩৬ তম হাফ সেঞ্চুরি পূর্ণ করলেই সেই রানকে বড়ো রানে বদলাতে পারেন নি দিল্লি অধিনায়ক। মাত্র ৫৫ রানেই রান আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তিনি। অন্যদিকে এই ম্যাচে বল হাতে যথেষ্টই প্রভাব ফেলেন পাঞ্জাব অধিনায়ক অশ্বিন। ম্যাচ শেষে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে এসে গম্ভীর জানান, “আমার মনে হয়েছিল আমরা যথেষ্ট ভদ্রস্থ রানই তুলতে পেরেছি স্কোরবোর্ডে। কিন্তু ওরা আমাদের পেছনে ফেলে দেয় প্রথম ৬ ওভারের মধ্যেই (রান তাড়া করতে নেমে)। তবে এটা আমাদের বোলারদেরই কৃতিত্ব যে ওরা লড়াই করেছে। এবং ম্যাচকে ১৯ ওভার পর্যন্ত টেনে নিয়ে গেছে। এই মাঠে ১৬০-১৬৫ লড়াই করার মতই যথেষ্ট রান (দিল্লির রান কম হয়েছে কি না প্রশ্ন করায়)। কারণ বল পুরোনো হয়ে গেলে খেলা খুব একটা সহজ নয়। ফলে প্রথম ৬ ওভারই ম্যাচ জেতার আসল চাবিকাঠি। তবে রিকি এবং অন্যান্য ব্যাকরুম স্টাফদের সহযোগিতায় আমরা ভালই শুরু করতে পেরেছি এই আইপিএলে”

আইপিএল ২০১৮: ম্যাচ ২, 19 ওভার পর্যন্ত ম্যাচ নিয়ে যাওয়ার কৃতিত্ব বোলারদের: গম্ভীর 3

অন্যদিকে বিজয়ী দলের অধিনায়ক অশ্বিন ম্যাচ শেষে একটি সাক্ষাৎকারে বলেন, “ অনেকটাই কম চাপ লাগছে এখন। আমি বেশ নার্ভাসই ছিলাম টস করতে যাওয়ার সময়। তবে এখন অনেকটা হালকা লাগছে। আমাদের বেশ কিছু বিস্তারিত পরিকল্পনা ছিল প্র্যাকটিস ম্যাচে। রাহুল এবং অন্যান্য খেলোয়াড়রা সেটা কাজে লাগাতে সাহায্য করেছে। হাঁ হাতি স্পিনার বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে বল করল কি না, বা ডানহাতি স্পিনার ডানহাতি ব্যাটসম্যানকে, এটা কোনো ব্যাপারই না। আমি মনে করি এটা কিছু মানুষের ভ্রান্ত একটা ধারণা। আমার মনে হয় আমার সেরা বোলাররা, সেরা বোলারই, যদি তারা মার খায় খাক, আমরা চেষ্টা করব রান লক্ষ্য তাড়া করার। এটাই আমাদের দলের চিন্তাভাবনা। আমি চেয়েছিলাম যে আমাদের দলের বেশিরভাগ ব্যাটসম্যানই ভালো হিট করুক এবং আমরা আজকে সত্যিই ভালো ব্যাট করেছি”।

আইপিএল ২০১৮:, দিল্লি ডেয়ারডেভিলস বনাম পাঞ্জাব, স্ট্যাটিস্টিক্যাল হাইলাইট

suvendu debnath

কবি, সাংবাদিক এবং গদ্যকার। শচীন তেন্ডুলকর, ব্রায়ান লারার অন্ধ ভক্ত। ক্রিকেটের...

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *