আইপিএল ২০১৮: আমাদের হাত তুলে স্বীকার করে নেওয়া উচিৎ আমরা ভাল ক্রিকেট খেলতে পারিনি: দীনেশ কার্তিক

নতুন অধিনায়কের হাত ধরে এই মরশুমের দ্বিতীয় জয় তুলে নিল দিল্লি ডেয়াডেভিলস। কলকাতার বিরুদ্ধে ফিরোজ শাহ কোটলায় তাদের ম্যাচটি শেষ পর্যন্ত একপেশে খেলায় পরিণত হয় তাদের পক্ষেই। এই ম্যাচে দিল্লির হয়ে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক হয় শ্রেয়স আইয়ারের। কেকেআর বোলারদের রীতিমতো নাস্তানাবুদ করে এই ম্যাচ বড় রান করে দিল্লি, সেই সঙ্গে দিল্লির বোলাররাও ব্যাটসম্যানদের পারফর্মেন্সের অনুরূপ পারফর্মেন্স করে দিল্লিকে এই মরশুমের দ্বিতীয় জয় এনে দেয়। অন্যদিনের তুলনায় এইদিন ফিরোজশাহ কোটলার উইকেট যথেষ্ট ভাল থাকায় টসে জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন কেকেআর অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক। দিল্লির দুই ওপেনার পৃথ্বী শ এবং কলিন মুনরো ৫০ রানের পার্টনারশিপ খেলে দিল্লিকে শক্ত ভিতের উপর দাঁড় করিয়ে দেয়।


শিমব মাভির বলে মুনরো আউট হলেও পৃথ্বী তার ইনিংসকে বাউন্ডারির সাহায্যে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন এবং আইপিএলে তার প্রথম হাফ সেঞ্চুরিও পূর্ণ করেন তিনি। পীযূষ চাওলার বলে তুলে মারতে গিয়ে বোল্ড হন পৃথ্বী। এরপর শূন্য রানে রাসেলের বলে ফিরে যান ঋষভ পন্থও। এখান থেকে জুটি বাঁধেন অধিনায়ক আইয়ার এবং গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। এই দুজনে মিলে কেকেআরের বোলিং আক্রমণকে ধ্বংস করে দেন। ম্যাক্সওয়েল খুব বেশি দূর যেতে না পারলেও এদিন বিধ্বংসী মেজাজে ছিলেন শ্রেয়স। মাত্র ৮০ বলে অপরাজিত ৯৩ রানের ইনিংস খেলেন তিনি যার মধ্যে ৩টি বাউন্ডারি এবং ১০টি বিশাল ছয়ও ছিল। তাদের ইনিংসের শেষ ওভারে শিভম মাভির বলে ২৯ রান তুলে দিল্লকে ২১৯ রানের পাহাড় নিয়ে যান তিনি।

জবাবে কেকেআর সুনীল নারিন এবং ক্রিস লিনের ওপেনিং জুটিতে শুরুটা আক্রমনাত্মক করলেও দ্বিতীয় ওভারেই গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের শিকার হন লিন। অন্যদিকে সুনীল নারিন বেশ কয়েকটি বাউন্ডারি হাঁকালেও ট্রেন্ট বোল্টের বাউন্সারে হার মেনে ডাগআউটে ফিরে যান। অন্য দিকে কেকেআরের দুই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান রবিন উথাপ্পা এবং নীতিশ রানাও ফিরে যান দ্রুত। মাত্র ৬ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে দ্রুতই হারের দিকে এগিয়ে যায় নাইটরা। অধিনায়ক কার্তিকও অমিত মিশ্রার প্রথম শিকার হয়ে ফিরে যান। এরপরই তরুণ নাইট শুভম গিল এবং রাসেল স্কোর বোর্ড চালু রাখার চেষ্টা করলেও যতই তাদের ইনিংস এগোতে থাকে উপর্যুপরী রানরেটও বাড়তে থাকে পাল্লা দিয়ে। এবং দিল্লির ইনিংস থেকে ৫৫ রান দূরেই থেমে যায় তাদের লড়াই।

ম্যাচ শেষে স্পষ্টতই হতাশ নাইট অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক বলেন, “২২০ রান বড় কাজ, যদি শিশির থাকত তাহলে কাজটা হয়ত সহজ হত আমাদের জন্য, কিন্তু আজ তেমনই একটা দিন যেখানে কোনও শিশিরই নেই। আমার মনে হয় ওরা সত্যিই আমাদের থেকে অনেক ভাল ব্যাট করেছে। যদি রাসেল মারতে শুরু করত, তাহলে ও আমাদের একটা আশা দিতে পারত, কিন্তু ও-ও একজন মানুষ। আমাদের উচিৎ হাত তুলে দেওয়া এবং বলা যে আমরা ভাল ক্রিকেট খেলতে পারি নি। সাধারণভাবে তিন স্পিনার খুব বেশি রান দেয় না।ওদের পাওয়ার প্লে’তে বোলিং করানো আমার কাছে আরামদায়ক। আমার মনে হয় যে সত্যি এবার আমাদের ফিল্ডিং বিভাগে জেগে ওঠার সময় হয়েছে। আমাদের ফিল্ডিং স্ট্যান্ডার্ড উন্নত করার দরকার রয়েছে, এবং যেটা আমাদের জন্য পরিস্থিতি বদলে দিতে পারে”।

আরও পড়ুন

RRvsDC: ম্যাচে হল ১০টি রেকর্ডস, রাহানে আর পন্থ গড়লেন বেশ কিছু বিশ্বরেকর্ড

দিল্লি ক্যাপিটালসের দল আইপিএল ২০১৯ এর ৪০তম রজস্থান রয়্যালস দলকে ৬ উইকেটে হারিয়ে দিয়েছে। এই ম্যাচ চলাকালীন...

দিল্লির জয়ের পুর টুইটারে ছাইলেন পন্থ, এই খেলোয়াড়কে নিয়ে জমিয়ে ঠাট্টা

দিল্লির জয়ের পুর টুইটারে ছাইলেন পন্থ, এই খেলোয়াড়কে নিয়ে জমিয়ে ঠাট্টা
আইপিএলে আজ খেলা হওয়া আইপিএলের ৪০তম লীগ ম্যাচে এক রোমাঞ্চকর ম্যাচ দেখতে পাওয়া গেল। দিল্লি ক্যাপিটালস আজ...

RRvsDC: পন্থের ঝোড়ো ইনিংসের সৌজন্যে দিল্লি ৬ উইকেটে হারাল রাজস্থানকে

RRvsDC: পন্থের ঝোড়ো ইনিংসের সৌজন্যে দিল্লি ৬ উইকেটে হারাল রাজস্থানকে
দিল্লি ক্যাপিটালস আর রাজস্থান রয়্যালসের মধ্যে আইপিএলের ৪০তম লীগ ম্যাচ জয়পুরের সওয়াই মানসিং ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খেলা হয়েছে।...

WATCH: রিয়ান পরাগ শ্রেয়সের উইকেট নেওয়ার পর করলেন অসমের পারম্পারিক নাচ

দিল্লি ক্যাপিটালিস আর রাজস্থান রয়্যালসের মধ্যে আইপিএল ২০১৯ এর ৪০তম লীগ ম্যাচ সওয়াই মানসিং ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খেলা...

ব্যাঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে ধোনির “রজনীকান্ত” হওয়ার মূল্য কিভাবে দলকে চোকাতে হল জেনে নিন

আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংস আর রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর মধ্যে হওয়া রোমাঞ্চকর ম্যাচে ব্যাঙ্গালুরু বাজি মেরে নিয়েছে। প্রথমে...