চেন্নাই: হাতে আর বিশেষ সময় নেই বললেই চলে। আগামী রবিবার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির প্রথম ম্যাচ খেলতে নামছে ভারত। এমন একটা সময় ভারতীয় দলের জন্য একটা খারাপ খবর বয়ে এল। মারা গেলেন দলের এক নম্বর স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিনের দাদু। জানা গিয়েছে, তিনি বয়সজনিত কারণেই মারা গিয়েছেন। অশ্বিনের বাড়ির লোকের তরফ থেকে এই খবর জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।সঙ্গে আরও জানানো হয়, রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বড় ক্রিকেটার হয়ে ওঠার পিছনে বিরাট অবদান রয়েছে তাঁর দাদুএস নারায়ণস্বামীর। তাঁর মূত্যুতে তাই শোকগ্রস্থ ভারতীয় স্পিনার। গত শনিবার মারা যান অশ্বিনের দাদু।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির জন্য ভারতীয় দলে সুযোগ না পেয়ে ধোনির বিরুদ্ধে এমন কথা বলতে পারলেন হরভজন সিং!

এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অশ্বিনের বাবা রবিচন্দ্রন বলেন, “মৃত্যুকালে বাবার বয়স হয়েছিল ৯২ বছর। মূলত, এই বয়সের কারণেই শরীরের নানারকম রোগের জন্য মারা যান তিনি।বাবা সাদার্ন রেলওয়েতে কাজ করেছেন। সেই সঙ্গে তিনি ছিলেন প্রচণ্ড ক্রিকেটপ্রেমী মানুষ। অশ্বিনের বড় ক্রিকেটার হয়ে ওঠার পিছনে তাঁর সিংহভাগ অবদান।” রবিবার অশ্বিনের দাদুর শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়েছে বলে আরও জানিয়ে দেন তিনি। স্পোর্টস হানিয়ার জন্য এবারের আইপিএলে খেলা হয়নি রবিচন্দ্রন অশ্বিনের। তবে তার আগে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে বল হাতে দুরন্ত ছন্দে ছিলেন এই অফস্পিন তারকা। এই মুহূর্তে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির জন্য অশ্বিন রয়েছেন ইংল্যান্ডে। সেখানে প্রথম ওয়ার্ম আপ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে জিতেছে ভারত। ভাল বল করেছেন অশ্বিনও। ৬ ওভার বল করে তিনি একটি উইকেটও নিয়েছেন। আগামী ৪ঠা জুন পাকিস্তানের বিরুদ্ধে মর্যাদের লড়াই। সেই ম্যাচে বিরাটের দল তাঁর দিকেই তাকিয়ে রয়েছে।

কুম্বলের পাশে দাঁড়িয়ে এবার বোর্ডের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করলো লোধা কমিশন