মার্কাস স্টোইনিস

কাঁধে চোট পেয়ে দেশে ফিরতে হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার মিচেল মার্সকে। ভারত সফরে এসে এমন একটা জমজমাট সিরিজ ছেড়ে দেশে ফিরতে হচ্ছে বলে স্বাভাবিকভাবেই ম্রিয়মান মার্স। পাশাপাশি এই ঘটনায় অস্ট্রেলিয়ান দলেরও প্রাথমিক এক ধাক্কা লেগেছিল। প্রাথমিক এই ধাক্কা কাটিয়ে মার্সের জায়গায় মার্কাস স্টোইনিসের নাম ঘোষণা করল অস্ট্রেলিয়ান টিম ম্যানেজমেন্ট।

শ্লেজিংয়ে কান না দিয়ে কোহলিকে নৈতিকতার পাঠ শেখালেন বিশ বছরের রেনশ


বেশ কিছুদিন ধরই কাঁধের চোটে ভুগছিলেন মার্স। এইভাবেই তিনি প্রায় গোটা গ্রীষ্মকালীন মরশুমে খেলেছেন। কিন্তু দ্বিতীয় টেস্টের পর সেই চোটের আরও অবনতি হওয়ায় মার্সকে দেশে ফিরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় দল। এদিকে বাকি দুটি টেস্টের জন্য অস্ট্রেলিয়ার তরফে ইতি মধ্যেই ঘোষণা করা হয়েছে মার্কাস স্টোইনিসের নাম।
কে এই মার্কাস স্টোইনিস? ২৭ বছর বয়সী এই ডানহাতি অলরাউন্ডার অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় দলের হয়ে মাত্র তিনটি একদিনে ম্যাচ ও একটি টি টোয়েন্টি খেলেছে। উল্লেখযোগ্য, ভারতের বিরুদ্ধে রাঁচির মাঠেই তার টেস্ট অভিষেক হবে। ২০১২ সালের ১১ সেপ্টেম্বর মার্কাসের অস্ট্রেলিয়ার হয়ে একদিনের খেলায় অভিষেক হয় ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে। এরপর মাত্র তিনটি ম্যাচ খেললেও, তিনি তার ব্যাটিংয়ে দারুণ প্রভাবিত করে নির্বাচকদের। বিশেষ করে চ্যাপেল-হ্যাডলি ট্রফিতে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে ম্যাচে দূর্দান্ত রান করে। এই ম্যাচে ২৮৭ রান তাড়া করতে নেমে একসময় মাত্র ৫৪ রানেই অস্ট্রেলিয়ার ৫টি উইকেট পড়ে যায়। এরপর মার্কাস প্রায় একা লড়ে ১১৭ বলে ১৪৬ রান বানায়। ১১টি ওভার বাউন্ডারি ও ৯টি বাউন্ডারি সহযোগে সাজানো তার এই ইনিংস, একজন অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডার হিসেবে অন্যতম সেরা ইনিংস।

ক্রিকেটের মাঠে স্মিথ ও ইশান্ত হঠাৎই ফিরে গেলেন শৈশবে। কাটলেন একে অপরকে ভেঙচি! কারণ জেনে হেসে কুপোকাত কোহলি থেকে কপিল


এই ধরনের ধূয়াধার ব্যাটিং করার ক্ষমতার জন্যই এবার টেস্টে অভিষেক হতে চলেছে তার, এমনটাই মনে করছেন অস্ট্রেলিয়ান মিডিয়া।এর আগে মার্সের জায়গায় মোয়েস হেনরিসের জায়গা হতে পারে জল্পণা শোনা যাচ্ছিল। ২০১৩তে ভারতে এসে খেলার সুবাদেই তাঁর অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগানোর কথা ভেবেছিল অস্ট্রেলিয়া।